খবরের বিস্তারিত...

islamic front bangladesh

আল্লামা সৈয়দ জালাল উদ্দিন (রঃ) ছিলেন সুন্নী জাগরণের এক মহান দিকপাল-আল্লামা জুবাইর

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় মহাসচিব জননেতা অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর বলেছেন,- যুগে-যুগে যেসকল মহাপুরুষদের আগমনে এ পৃথিবী ধন্য হয়েছে, এবং যেসকল ক্ষণজন্মা মানুষরা এদেশের জাতীয় ইতিহাসকে সমৃদ্ধ করেছেন, ঠিক তাদেরই অন্যতম একজন হিসেবে আল্লামা সৈয়দ জালাল উদ্দিন (রঃ) নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন। একজন হাদিস বিশারদ হিসেবে তিনি মৃত্যুঅবধি রাসুল পাক (দঃ) এর হাদিস শাস্ত্রের পাঠন-পঠনে ব্রত থেকে ইসলামের নিরবচ্ছিন্ন খেদমত আঞ্জাম দিয়ে গেছেন। অন্তিম মূহুর্ত পর্যন্ত তিনি ইসলামের মূলধারা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আদর্শের উপর অবিচল থেকে সুন্নীয়তের সম্প্রসারণে অসামান্য অবদান রেখেছেন। ব্যক্তিজীবনে অত্যন্ত উঁচুমানের একজন আলেমেদ্বীন ও ইসলামী স্কলার হিসেবে অধিকতর পরিচিতি থাকলেও তিনি ছিলেন আপাদমস্তক শিষ্ঠাচারাবৃত একজন সাদা মনের মানুষ। সর্বপ্রকার লোভ, ক্রোধ, অহংকার, হিংসা-বিদ্বেষ এর উর্ধ্বে থেকে তিনি জাতীয় জীবনে একটি সুস্থ, সুন্দর, স্থিতিশীল ও মানবিক মূল্যবোধের সমাজ বিনির্মানে অনন্য অবদান রেখেছেন। যা প্রজন্ম পরম্পরায় সঞ্জিবনী শক্তি হিসেবে কাজ করবে নিঃসন্দেহে। সুন্নীয়তের প্রতি ছিল তাঁর অগাধ দরদ ও মমত্ববোধ এবং অকৃত্রিম ভালবাসা। একারণেই সুন্নীয়ত বিরোধী যেকোন চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন সর্বদা আপোষহীন। তাঁর জীবদ্দশায় তিনি সুন্নীয়তের বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলার ক্ষেত্রে অনন্যসাধারণ অবদান রেখেছেন। সত্যিকার অর্থে আল্লামা সৈয়দ জালাল উদ্দিন (রঃ) ছিলেন সুন্নী জাগরণের এক মহান দিকপাল। তাঁর স্বপ্ন ও আদর্শের যথাযথ বাস্তবায়ন হলেই তবে জাতীয় জীবনে একটি সুস্থ, সুন্দর, সন্ত্রাস ও অপরাধমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা সম্ভব।
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম নগর এর উদ্যোগে অদ্য ২২ জুন ২০১৬ইং রোজ বুধবার বিকেল ০৩ টায় নগরীর জিইসি মোড়স্থ হোটেল জামান মিলনায়তনে সদ্যপ্রয়াত দেশের বরেণ্য আলেমেদ্বীন, হাটহাজারী ছিপাতলী জামেয়া গাউসিয়া মঈনিয়া কামিল এম এ মাদ্রাসার শাইখুল হাদিস হযরতুলহাজ্ব আল্লামা সৈয়দ জালাল উদ্দিন (রঃ) স্মরণে অনুষ্ঠিত সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত মন্তব্য করেন।
সভাপতির বক্তব্যে আলহাজ¦ এইচ এম মুজিবুল হক শুক্কুর মরহুম আল্লামা সৈয়দ জালাল উদ্দিন (রঃ) এর কৃর্তীময় বর্ণাঢ্য জীবনের উপর আলোকপাত করতে গিয়ে বলে তিনি অনেক বড় মফের আলেম ছিলেন, নিজ গ্রামে তাঁর প্রতিষ্ঠিত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোকে যথাযত ভাবে রক্ষনাবেক্ষন ও সুষ্ঠ পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি উদাত্ব আহবান জানান।
ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগরীর সভাপতি আলহাজ¦ এইচ এম মুজিবুল হক শুক্কুরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিতব্য উক্ত স্মরণ সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত্ব ছিলেন সংগঠক অধ্যক্ষ আল্লামা এস এম ফরিদ উদ্দীন, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম নগর শাখার সাধারন সম্পাদক এস এম আবদুল করিম তারেক, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলার সাধারন সম্পাদক স ম শহিদুল হক ফারুকী, শাহাজাদা সৈয়দ মোহাম্মদ মুনির উদ্দীন, সৈয়দ সরফুদ্দীন, অধ্যক্ষ আল্লামা আবু ছালেহ্, আলহাজ¦ ইলিয়াছ খান ইমু, মোহাম্মদ মহিউদ্দীন তাহেরী, ডাঃ হাসমত আলী তাহেরী, এম ফয়সাল নেওয়াজ, নিজাম উদ্দীন নোমানী, দিদারুল আলম, আহম্মদ রেজা, এস এম আবু ছাদেক ছিটু, কাজী সোলতান আহম্মেদ, শাহাদাত হোসেন আরাকাত, জিয়াউর রহমান, হাফেজ নুরুল আলম, আবদুল্লাহ আল ইকবাল চৌধুরী, রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, শহীদুল ইসলাম, রিদাওয়ানুল হক চৌঃ, এম মোরশেদ, এম ইমরান আলী, এইচ এম এসতেফাজুর রহমান প্রমুখ।

Comments

comments

Related Post