খবরের বিস্তারিত...

ক্কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাচন ইসলামিক ফ্রন্ট

অনিয়মের অভিযোগে ফলাফল প্রত্যাখ্যান ও কর্ণফুলীতে পুনঃনির্বাচনের দাবী ইসলামিক ফ্রন্টের

সেপ্টে. 25, 2017 সাংগঠনিক খবর

  • কর্ণফুলী নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি, অনিয়ম ও ভোট কেন্দ্র দখলের অভিযোগ ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে পুন:নির্বাচন দাবী করেছে ইসলামিক ফ্রন্টের প্রার্থী জাহাঙ্গীর রিজভী ও হাফেজ নাছির।

    ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ কর্ণফুলী উপজেলার উদ্যোগে অদ্য ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং সোমবার বেলা ১১টায় নগরীর মোমিন রোডস্থ অভিজাত রেস্তোঁরা স্যাফরানে নির্বাচন পরবর্তী অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বলেছেন,- চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সংলগ্ন দক্ষিণ চট্টগ্রামের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা কর্ণফুলী। নব সৃষ্ট এই উপজেলায় প্রথমবারের মত নির্বাচন হওয়াতে এলাকার মানুষের নিকট ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার কোনই কমতি ছিলনা। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এলাকায় সৃষ্ট উৎসবমূখরতা নির্বাচন শুরু হওয়ার সাথে সাথেই ফিকে হয়ে গেছে। বিভিন্ন কেন্দ্রে দৃশ্যমান হতে থাকে নানাবিধ অনিয়ম, কারচুপি,জালভোট প্রদান, ভোটারদের ভীতি প্রদর্শন, ভোট কেন্দ্র দখল, পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে জোর পূর্বক বের করে দেয়া, অবৈধভাবে ব্যালট পেপারে সীল মারা সহ ইত্যাকার যাবতীয় নির্বাচন বহির্ভুত কর্মকান্ড। এছাড়াও আইনশৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর প্রশ্নবিদ্ধ ভুমিকা জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে। অনেক ভোটার ভোট কেন্দ্রে এসে পছন্দের প্রতিক ও প্রত্যাশিত প্রার্থীকে ভোট দিতে না পেরে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। প্রকৃতপক্ষে কোনভাবেই এ নির্বাচন সুষ্ট ও নিরপেক্ষ হয়নি। নির্বাচনী এই ফলাফল পূর্ব নির্ধারিত। এতে জনরায়ের প্রতিফলন ঘটেনি। তাই এই ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে তিনি কর্ণফুলী উপজেলায় পূন: নির্বাচন দাবী করেন। তিনি আরও বলেন,- বর্তমান নির্বাচন সংস্কৃতিতে জনগণের যে আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে, এই দুষ্ট বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসার যথেষ্ট সুযোগ ছিল নির্বাচন কমিশনের। কিন্তু বিধি বাম! নির্বাচন কমিশন এহেন সোনালী সুযোগের কাজে লাগানো তো দূরের কথা, তিনি বরাবরই ৫ জানুয়ারীর সেই বিতর্কিত নির্বাচনের পুনরাবৃত্তিই ঘটালো। নির্বাচনের ক্ষেত্রে বর্তমান কমিশন যে একটি টুঠো জগন্নাথ তা পূনর্বার প্রমাণ করেছে। একটি অবাধ সুষ্টু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যর্থতার দায়ভার কাঁধে নিয়ে নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ করা উচিত বলেও তিনি মন্তব্য করেন। সত্যিকার অর্থে গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির বিকাশমান ধারাকে অব্যাহত রাখা এবং অবাধ, সুষ্টু,নিরপেক্ষ এবং সর্বজন গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সরকারের প্রভাবমুক্ত সম্পূর্ণ স্বাধীন একটি নির্বাচন কমিশনের কোন বিকল্প নেই।
    সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন,- নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সচিব স ম হামেদ হোসাইন। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন,- ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এম সোলায়মান ফরিদ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী অধ্যাপক এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী রিজভী, ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হাফেজ মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর সহ সভাপতি অধ্যক্ষ এম ইব্রাহীম আখতারী, চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ইসলামিক ফ্রন্টের সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক স ম শহীদুল হক ফারুকী,এম মহিউল আলম চৌধুরী, আলহাজ্ব ওয়াহেদ মুরাদ, আলহাজ্ব এ এম মঈন উদ্দিন চৌধুরী হালিম, এম ওয়াহিদুল্লাহ সিরাজী, অধ্যাপক মোহাম্মদ সেলিম ও নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

Comments

comments

Related Post