খবরের বিস্তারিত...

Untitled

হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন ইসলামি সংস্কৃতির অন্যতম অনুসঙ্গ- ইসলামিক ফ্রন্ট মহাসচিব

সেপ্টে. 13, 2018 অন্যান্য

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর মাননীয় মহাসচিব শায়খুল হাদীস অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদীন জুবাইর বলেছেন- ‘হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন ইসলামি সংস্কৃতির অন্যতম অনুসঙ্গ। মুসলিম উম্মাহ্ সানন্দে এ আয়োজন সফল করলে ধর্মজীবনের লক্ষ্য অর্জনের পথ মসৃণ করবে। সংস্কৃতি বিমুখ ধর্মচর্চার ফলে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠেছে। ধর্মানুসৃত সংস্কৃতি অনুশীলন ও বিকশিত হলে প্রতিক্রিয়াশীল ধর্মান্ধতা স¤প্রদায়িকতা জঙ্গিবাদ তিরোহিত হবে, অপসংস্কৃতির দৌরাত্ম্য ঠেকানো যাবে। এভাবেই তরুণ যুব মানসে ধর্মবোধের উম্মেষ ঘটবে। পরিমার্জিত ব্যক্তিজীবন, পরিশীলিত পরিবার, পরিপুষ্ট সমাজ, সমৃদ্ধ দেশ এবং উন্নত বিশ্ব গড়তে শুদ্ধ সংস্কৃতির বিস্তৃতি আবশ্যক। ইতিহাস ঐতিহ্য কৃষ্টি সভ্যতার বাহন হিসেবে ইসলামি সংস্কৃতি তেজোদীপ্ত। যেহেতু হিজরিসন চন্দ্রমাস কেন্দ্রিক। মুসলিম বিশ্বের ধর্মপর্ব যেভাবে চন্দ্রমাস হিসেব কষে নিরূপিত, একই ভাবে পৃথিবীর অন্যান্য ধর্মসমূহের সংস্কৃতিতে পূণ্যপর্ব চন্দ্র তারিখেই পালিত হয়। মুসলিম উম্মাহ্ চন্দ্রমাসের তারিখ অনুযায়ী ১০ মহরম আশুরা দিবস, ২৪ সফর ইয়াওমে রেজা, ১২ রবিউল আউয়াল পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.), ১১ রবিউসসানি ফাতেহায়ে ইয়াজদাহুম, ৬ রজব খাজা গরিবে নেওয়াজের ওরস শরীফ, ২৭ রজব পবিত্র মেরাজুন্নবী (দ.), ১৫ শাবান পবিত্র শবে বরাত, রমজানে মাসব্যাপি রোজা ২৭ তারিখ পবিত্র শবে কদর, ঈদুল ফিতর ঈদুল আযহা প্রভৃতি পালিত হয়। একইভাবে অন্যান্য ধর্মের অনিবার্য পবিত্র পর্বগুলো হিজরিসনের হিসেব মতে উদ্যপিত হয়ে আসছে’।
হিজরিসন ১৪৩৯ বিদায় ১৪৪০ বরণোপলক্ষে অদ্য ১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে এক মনোজ্ঞ আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই কথাগুলো বলেন।
হিজরি নববর্ষ মঞ্চের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ সৈয়দ মুহাম্মদ আবু ছালেহ’র সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন অধ্যাপক সৈয়দ মোক্তার উদ্দীন। এতে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন- এম সোলায়মান ফরিদ, কবি মুহাম্মদ ইকবাল ইউসূফ, অধ্যাপক আ.মা.ম মুবিন, আলহাজ এম এ সবুর, কবি কে.এম. নুরুল ইসলাম হুলাইনী, অধ্যক্ষ এম. এম. মূসা, এম. মহিউল আলম চৌধুরী, এডভোকেট মীর মোহাম্মদ ফেরদৌস আলম সেলিম, জহুর উদ্দীন, নাছির উদ্দীন, কাজী মুফিজুর রহমান, এস.এম. আবু ছাদেক সিটু, প্রফেসার কাজী সোলতান, এস.এম. আবু তাহের, কামরুল ইসলাম শাকিল। ইঞ্জিনিয়ার আরিফ উদ্দীন, ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল, খ.ম. জামাল উদ্দীন, এনামুল হক এনাম, এমদাদুল ইসলাম চ.বি.। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন সচিব মুহাম্মদ ইমরান।
প্রধান অতিথি আরো বলেন, হিজরি নববর্ষ উদ্যাপনের মাধ্যমে আমাদের আত্মপরিচয় পরিচ্ছন্ন হয়েছে। এ আয়োজন জনগণ কে দেশপ্রেমে প্রাণিত করেছে। ইসলামি সংস্কৃতি বিকশিত বিস্তৃত হলে শান্তি ও ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠিত হবে।
বিভিন্ন সংস্কৃতিক ফোরাম এর তত্ত¡াবধানে অনুষ্ঠানে মনোমুগ্ধকর হামদ, নাত, সঙ্গীত, আবৃত্তি, মাইজভাণ্ডারি ও কাওয়ালি গান পরিবেশিত হয়।

Comments

comments

Related Post